৮:৪৯ এএম, ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২০, বৃহস্পতিবার | | ৩ রজব ১৪৪১

Developer | ডেস্ক

এবার কলকাতায় করোনাভাইরাস!

০৯ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ০৬:৩২


এবার ভারতের পশ্চিমবঙ্গে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগীর সন্ধ্যান পাওয়া গেছে।  সম্প্রতি কলকাতার দক্ষিণ শহরতলীর মুকুন্দপুরের আরএনটেগোর হাসপাতালে স্বাস্থ্যপরীক্ষা করতে গেলে এক বৃদ্ধের শরীরে মরণব্যাধি এ ভাইরাসের উপস্থিতি পাওয়া যায়। 

হাসপাতাল সূত্রের বরাত দিয়ে রাজ্যটির গণমাধ্যমের প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়, আক্রান্ত বৃদ্ধের বাড়ি যাদবপুরের পোদ্দার নগর এলাকায়।  খবর ছড়িয়ে পড়লে হাসপাতালে উপস্থিত অন্যান্য রোগীর লোকজনও আতঙ্কিত হয়ে পড়েন।  অনেকেই হাসপাতাল থেকে তাদের রোগীকে ছাড়িয়ে নিতে চাইছেন।  বৃদ্ধের বাড়ি যাদবপুরেও আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছে। 

হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ আতঙ্কিত না হওয়ার পরামর্শ দিয়ে বলছেন, ভাইরাসটি এইচসিওভি-২২৯ই, এইচসিওভিএনএল৬৩ অথবা এইচসিওভি এইচকেইউ১ শ্রেণির করোনাভাইরাস।  যা অত্যন্ত সাধারণ মানের।  এটির সঙ্গে চীনের করোনাভাইরাসের কোনো সম্পর্ক নেই। 

ডা. অরিন্দম বিশ্বাস বলেন, বার্ধক্যজনিত সমস্যার পাশাপাশি বৃদ্ধের কিডনি ও ফুসফুসের সমস্যা আছে।  যার কারণে সাধারণ ভাইরাসটি ঠেকানোর মতো শক্তি তার নেই। 

তিনি বলেন, সাধারণ করোনাভাইরাসটি আর পাঁচটা ভাইরাসের মতোই।  এক্ষেত্রে ভাইরাস জ্বরের কোনো ওষুধ নেই।  প্রতিরোধ করার জন্য কিছু নিয়ম মেনে চলতে হয়।  বাতাসের মাধ্যমে যেন এর জীবাণু না ছড়ায় সেজন্য মাস্ক পরিধান করে চলাচল করাই উত্তম। 

প্রসঙ্গত, চীনের উহান শহর থেকে ছড়িয়ে পড়া করোনাভাইরাসে এখন পর্যন্ত ভারতে অন্তত ৪ জন আক্রান্ত হয়েছেন।  এর মধ্যে শুধু কেরালাতে আক্রান্ত হয়েছেন ৩ জন। 

এদিকে করোনাভাইরাসে এখন পর্যন্ত চীনের মূল ভূখণ্ডে মৃতের সংখ্যা ৮১০ জনে দাঁড়িয়েছে।  এর মধ্যে হুবেই প্রদেশেই ৭৮০ জনের মৃত্যু হয়েছে।  মোট আক্রান্ত ৩৪ হাজার ৮০০ জন।  বর্তমানে ২০ হাজারেরও বেশি রোগী হাসপাতালে ভর্তি আছেন।  যার মধ্যে ১১৫৪ জনের অবস্থা আশঙ্কাজনক। 

চীন ছাড়াও বিশ্বের ২৮টি দেশে ভাইরাসটি ছড়িয়ে পড়েছে, আক্রান্ত হয়েছেন অন্তত ৩১০ জন।  এতে ফিলিপাইন ও হংকংয়ে দুই জনের মৃত্যু হয়েছে।  চীনে মৃত্যু হয়েছে এক মার্কিন নাগরিকের।