৫:৩২ পিএম, ২০ অক্টোবর ২০২০, মঙ্গলবার | | ৩ রবিউল আউয়াল ১৪৪২

Developer | ডেস্ক

শাওমি রেডমি ৯সি:

ট্রিপল ক্যামেরার সঙ্গে স্বাচ্ছন্দ্য গেইমিং

১১ অক্টোবর ২০২০, ০৭:৪৬


গ্লোবাল টেকনোলজি লিডার শাওমি চলতি মাসের শুরুর দিকে দেশে নতুন রেডমি ৯সি মডেলের এন্ট্রি লেভেলের এবং কম বাজেটের ফোন উন্মোচন করেছে।  কমদামে গেম খেলার ফোন যারা খুঁজছেন, তারা পছন্দ করতে পারেন। 

শাওমি তাদের বাজেট লাইন-আপের রেডমি ৯সি স্মার্টফোনটিতে দিয়েছে ট্রিপল ক্যামেরা সেটআপ, বড় আকৃতির ডিসপ্লে আর উন্নত প্রসেসর। 

ফোনটিতে রয়েছে ৬.৫৩ ইঞ্চির বড় আকারের এলসিডি ডট ড্রপ ডিসপ্লে।  এর স্ক্রিন টু বডি রেশিও ৮১ দশমিক ১।  স্ক্রিনের রেজ্যুলেশন ৭২০x১৬০০ পিক্সেল।  আর পিপিআই ডেনসিটি ২৬৯।  এর পিপিআই ডেনসিটি কিছুটা কম হওয়ায় দিনের বেলা অধিক আলোতে ডিসপ্লে দেখার ক্ষেত্রে একটু সমস্যা হতেও পারে।  ডিসপ্লের বিচারে একে মোটামুটি বলা যায়। 

ডিভাইসটির পুরো কাঠামো তৈরি হয়েছে প্লাস্টিকে।  এর বডি ১৬৪.৯৭৭৯ মিলিমিটার।  ওজন ১৯৬ গ্রাম।  ফোনের পেছনে দেয়া হয়েছে টেক্সচারড ডিজাইন।  যা যেকোনো ধরনের দাগ থেকে রক্ষ করবে এবং সবসময় রাখবে নতুনের মতো। 

এআই ফেইস আনলক আপনাকে যেকোনো ধরনের অপ্রত্যাশিত অ্যাক্সেস থেকে নিরাপত্তা দেবে।  পিছনে বাঁদিকে উপরে রয়েছে ট্রিপল ক্যামেরা সেটআপ ও ফ্ল্যাশ। 

আইফোন ১১ প্রো ডিজাইনের ক্যামেরা সেটআপ হ্যান্ডসেটটিকে দিয়েছে আলাদা মাত্রা। 

এছাড়া পিছনে উপরের দিকে রয়েছে একটি ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর।  সামনের ক্যামেরা রয়েছে একেবারে উপরের দিকে মাঝে।  ডান সাইডে উপরে রয়েছে ভলিউম রকার, তার নিচে পাওয়ার বাটন।  বাম সাইডে রয়েছে সিম ট্রে ও মেমোরি কার্ড স্লট।  ফোনটিতে রয়েছে স্ট্যান্ডবাই ডুয়েল সিম সুবিধা। 

ক্যামেরা: যেকোনো পরিস্থিতিতে দ্রুত ও পরিষ্কার ছবি তোলার সুবিধা দিতে রেডমি ৯সি হ্যান্ডসেটে রয়েছে স্পোর্টস এআই ট্রিপল ক্যামেরা।  যার প্রধান ক্যামেরা এফ/২.২ অ্যাপারচারের ১৩ মেগাপিক্সেলের, রয়েছে এফ/২.৪ অ্যাপারচারের ২ মেগাপিক্সেলের ডেফথ সেন্সর এবং এফ/২.৪ অ্যাপারচারের ২ মেগাপিক্সেলের ম্যাক্রো ক্যামেরা।  সঙ্গে রয়েছে এলইডি ফ্ল্যাশ।  সামনে রয়েছে ৫ মেগাপিক্সেলের এআই সেলফি ক্যামেরা। 

ক্যামেরায় রয়েছে এআই বিউটি, প্যানারোমাসহ নানা  ধরনের ফিচার। 

সেলফি ক্যামেরা ৫ মেগাপিক্সেলের বদলে আরেকটু ভালো দিতে পারতো শাওমি।  তবে ভিডিওর অভিজ্ঞতা খুব ভালো পাওয়া যাবে।  কেননা এতে ১০৮০ পিক্সেলে ৩০এফপিএসে এবং ৭২০পিক্সেলে ৩০এফপিএসে ভিডিও করা যাবে।  তাই যারা ভিডিও কনটেন্ট নিয়ে কাজ করতে চান তাদের স্বল্প বাজেটের মধ্যে রেডমি ৯সি হতে পারে একক পছন্দ। 

পারফরম্যান্স: ফোনটিতে মিডিয়াটেক হেলিও জি৩৫, অক্টা-কোর গেইমিং চিপসেট।  ১২ ন্যানোমিটার প্রযুক্তিতে তৈরি করা হয়েছে এটি।  যার গতি দেবে ২.৩ গিগাহার্জ।  অপারেটিং সিস্টেম হিসেবে রয়েছে অ্যান্ড্রয়েড ১০ এবং সঙ্গে রয়েছে শাওমির কাস্টমাইজ অপারেটিং সিস্টেম এমআইইউআই ১২।  ফলে স্বাভাবিকভাবেই অনেক নতুন ফিচার পাওয়া যাবে এতে। 

অক্টা-কোরের সিপিইউয়ের মধ্যে ৪২.৩ গিগাহার্জ কোর্টেক্স-এ৫৩ এবং ৪১.৪ গিগাহার্জ কোর্টেক্স-এ৫৩। 

এছাড়া জিপিইউ রয়েছে পাওয়ার ভিআর জিই৮৩২০।   ডিভাইসটিতে গেম খেলার জন্য ফোনটিতে ব্যবহার করা হয়েছে গেইমিং চিপ।  ফলে স্বাভাবিকভাবেই আপনি এতে ল্যাগ ছাড়াই গেম খেলতে পারবেন।  তবে এ ক্ষেত্রে যদি আপনার হাতে ৩ জিবি র‌্যামের সংস্করণটি থাকে তাহলে সেটি আরও ভালো অভিজ্ঞতা দেবে।  এছাড়াও মাল্টি টাস্কিং, ভিডিও কলে কোনো ধরনের ল্যাগ থাকে না।  

ব্যাটারি:  আপনি যদি সাধারণ ব্যবহারকারী হন তাহলে রেডমি ৯সি বাজেট ফোনটি আপনার জন্য দীর্ঘ পথচলা সহাজ করবে।  কেননা এতে রয়েছে ৫০০০ এমএএইচের ব্যাটারি।  যা একবার সম্পূর্ণ চার্জে দুই দিন পর্যন্ত আপনি চালাতে পারবেন।  আর যদি গেইমিং করে সময় কাটাতে চান তাহলেও আপনি এটি ১২ ঘণ্টার মতো ব্যবহার করতে পারবেন। 

ডিভাইসটির চার্জিংয়ের জন্য রয়েছে ইউএসবি ম্যাইক্রো চার্জার।  বক্সে থাকছে ১০ ওয়াটের চার্জার।  ডিভাইসটিতে ফুল চার্জ হতে আড়াই ঘণ্টার মতো সময় নেয়।  যা কিছুটা বেশি মনে হয়েছে। 

দেশের বাজারে ফোনটি সানরাইজ অরেঞ্জ, টুয়াইলাইট ব্লু এবং মিডনাইট গ্রে রঙে পাওয়া যাচ্ছে।  এর ২ জিবি র‌্যাম ও ৩২ জিবি সংস্করণের দাম ১০ হাজার ৯৯৯ টাকা এবং ৩ জিবি র‌্যাম ও ৬৪ জিবি সংস্করণের দাম ১২ হাজার ৪৯৯ টাকা।  ফোনটি দেশের সব অথরাইজড মি স্টোর, রিটেইল পার্টনার স্টোরে পাওয়া যাচ্ছে।