১২:৩০ এএম, ২০ জানুয়ারী ২০২১, বুধবার | | ৬ জমাদিউস সানি ১৪৪২

Developer | ডেস্ক

বান্ধবীর বাড়িতে বেড়াতে এসে কিশোরী গণধর্ষণের শিকার !

০১ জানুয়ারী ২০২১, ০৯:০৭


নেত্রকোনার কলমাকান্দা উপজেলার সীমান্তবর্তী এলাকায় বান্ধবীর বাড়িতে বেড়াতে যাওয়া এক কিশোরী (১৬) গণধর্ষণের শিকার হয়েছে।  এ ঘটনায় ধর্ষণে সহায়তাকারী ভুক্তভোগীর বান্ধবীসহ দুজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।  গতকাল বৃহস্পতিবার রাতে ছয়জনকে আসামি করে ভুক্তভোগী কলমাকান্দা থানায় মামলা দায়ের করেন।  

গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন-কলমাকান্দা উপজেলার সদর ইউনিয়নের নয়াপাড়া গ্রামের মাখন দাসের ছেলে লক্ষণ দাস (২৩) ও ধর্ষণে সহায়তাকারী একই উপজেলার লেংঙ্গুরা ইউনিয়নের ইয়ারপুর গ্রামের সামছুদ্দীনের মেয়ে পারভীন আক্তার ওরফে মায়া শেখ (২৭)। 

পুলিশ ও মামলার এজাহার সূত্রে জানা যায়, ঢাকার মহাখালীতে ভাড়া বাসায় থেকে গার্মেন্টসে কাজ করেন ভুক্তভোগী কিশোরী ও তার বান্ধবী মায়া শেখ।  গত মঙ্গলবার মায়া শেখের সঙ্গে কলমাকান্দায় বেড়াতে যান ভুক্তভোগী কিশোরী।  কলমাকান্দার একটি আবাসিক হোটেলে রাতে থাকেন তারা।  সেখানে মায়া শেখের মাধ্যমে শীতল (২৫) নামে এক যুবকের সঙ্গে ওই কিশোরীর সখ্যতা গড়ে ওঠে।  

গত বুধবার শীতল ভুক্তভোগী কিশোরীকে ফুসলিয়ে মোটরসাইকেলে করে ঘুরতে নিয়ে যান।  দিনভর বিভিন্ন জায়গায় ঘুরে রাতে অজ্ঞাত স্থানে নিয়ে শীতলসহ অজ্ঞাত আরও ৭-৮ জন ওই কিশোরীকে ধর্ষণ করে।  পরে গভীর রাতে তাকে উপজেলার সীমান্তবর্তী ভবানীপুর এলাকায় পুকুর পাড়ে ফেলে রেখে চলে যায় ধর্ষকরা।  

ওই রাতে জাতীয় জরুরি সেবা ৯৯৯-এ এক ব্যক্তি ফোন করে জানায়, একটি মেয়েকে কয়েকজন লোক ধরে নিয়ে ধর্ষণ করছে।  তাৎক্ষণিক ৯৯৯ এর পক্ষ থেকে বিষয়টি কলমাকান্দা থানার ডিউটি অফিসারকে জানানো হলে পুলিশ অভিযান চালিয়ে ভুক্তভোগী কিশোরীকে উদ্ধার করে থানায় নিয়ে যায়।  পরে গতকাল বৃহস্পতিবার বিকেলে নেত্রকোনা আধুনিক  সদর হাসপাতালে ওই কিশোরীর শারীরিক পরীক্ষা সম্পন্ন করা হয়। 

এ ঘটনায় মামলা দায়েরের পর গতকাল বৃহস্পতিবার অভিযুক্ত লক্ষণ দাস ও ধর্ষণে সহায়তাকারী পারভীন আক্তার ওরফে মায়া শেখকে গ্রেপ্তার করা হয়।  এছাড়া ঘটনাস্থল থেকে একটি মোটরসাইকেল জব্দ করা হয়।  

কলমাকান্দা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এটিএম মাহমুদুল হক বলেন, ‘গতকাল বৃহস্পতিবার রাতে ভুক্তভোগী নিজেই বাদী হয়ে ছয়জনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাত আরও দুই থেকে তিনজনকে আসামি করে মামলা দায়ের করেছেন।  গ্রেপ্তারকৃতদের ও ভুক্তভোগীর জবানবন্দি নেওয়ার জন্য আজ শুক্রবার নেত্রকোনা জেলা আদালতে তোলা হবে। ’

তিনি বলেন, ‘ঘটনায় জড়িত অন্য আসামিদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।  ইতিমধ্যেই ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ফখরুজ্জামান জুয়েল ও সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার (দুর্গাপুর-কলমাকান্দা) সার্কেল মাহমুদা শারমিন নেলী। ’