১১:৩০ এএম, ৮ এপ্রিল ২০২০, বুধবার | | ১৪ শা'বান ১৪৪১

Developer | ডেস্ক

মহা বিস্ফোরণে ব্রহ্মাণ্ডে মহাগর্ত!

০২ মার্চ ২০২০, ০৭:০০


১৪০০ কোটি বছরের ব্রহ্মাণ্ডে প্রলয়ংকর বিস্ফোরণ ঘটেছে।  আর এই বিস্ফোরণে এত বেশি পরিমাণ নির্গত হয়েছে যা বিগ ব্যাংয়ের চেয়েও ভয়াবহ। 

ব্রহ্মাণ্ডের সেই বিস্ফোরণ ধরা পড়েছে চারটি টেলিস্কোপে।  পশ্চিম অস্ট্রেলিয়ায় বসানো ‘মুর্চিসন ওয়াইডফিল্ড অ্যারে (এমডব্লিউএ), নাসার ‘চন্দ্র এক্স-রে অবজারভেটরি’, ইউরোপিয়ান স্পেস এজেন্সির ‘এক্সএমএম-নিউটন’ এবং ভারতের পুণের ‘জায়ান্ট মিটার রেডিও টেলিস্কোপ (জিএমআরটি)’ এই চারটি টেলিস্কোপে ধরা পড়েছে এই বিস্ফোরণ। 

চারটি টেলিস্কোপে ধরা পড়া পর্যবেক্ষণের ভিত্তিতে গবেষণাপত্রটি প্রকাশিত হয়েছে আন্তর্জাতিক বিজ্ঞান-জার্নাল ‘দ্য অ্যাস্ট্রোফিজিক্যাল জার্নাল’-এ। 

চারটি টেলিস্কোপের পর্যবেক্ষণে বলা হয়েছে, সেই ভয়ংকর বিস্ফোরণটা হয়েছে আমাদের থেকে ৩৯ কোটি আলোকবর্ষ দূরে।  ‘অফিউচুস’ নামে রয়েছে যে গ্যালাক্সির ঝাঁক (‘গ্যালাক্সি ক্লাস্টার’), তার কেন্দ্রস্থলের কাছাকাছি এলাকায়।  একটি দানবাকৃতি ব্ল্যাক হোল বা কৃষ্ণগহ্বরের চারপাশে। 

চারটি টেলিস্কোপ দেখেছে, বিস্ফোরণের পর অকল্পনীয়ভাবে উত্তপ্ত গ্যাস বেরিয়ে ছড়িয়ে পড়ছে চারদিকে।  সেই ভয়ংকর বিস্ফোরণে শুধু তোলপাড়ই হয়নি ব্রহ্মাণ্ড, তৈরি হয়েছে একটা প্রকাণ্ড গর্তের।  যে গর্তের মধ্যে নেই কোনো কণা বা পদার্থ। 

আমাদের মিল্কি ওয়ে গ্যালাক্সির মতো ১৫টি গ্যালাক্সিকে পাশাপাশি রাখলে যতটা জায়গা জুড়ে থাকে এই গর্তের ব্যাস নাকি ততটা।  আরো সহজ করে বলতে গেলে, ১০০ কোটি সৌরমণ্ডলকে পাশাপাশি রাখলে তা যতটা জায়গা জুড়ে থাকে, ঐ প্রকাণ্ড গর্তের চেহারাটা ততটাই বিশাল। — আনন্দবাজার পত্রিকা