৮:২৯ পিএম, ১৫ এপ্রিল ২০২১, বৃহস্পতিবার | | ৩ রমজান ১৪৪২

Developer | ডেস্ক

২৫ জানুয়ারি এই দিনে

২৫ জানুয়ারী ২০২১, ১১:৩২


মহাকবি, নাট্যকার, বাংলা ভাষায় সনেট ও অমিত্রাক্ষর ছন্দের প্রবর্তক শ্রী মধুসূদন দত্ত।  ১৮২৪ সালের ২৫ জানুয়ারি যশোর জেলার কপোতাক্ষ নদের তীরে সাগরদাঁড়ি গ্রামে তিনি জন্মগ্রহণ করেন।  তার বাবা রাজনারায়ণ দত্ত, মা জাহ্নবী দেবী।  বাবা ছিলেন বিখ্যাত আইনজীবী।  মায়ের কাছেই মধুসূদনের বাল্যশিক্ষা।  কলকাতার হিন্দু কলেজে বাংলা, সংস্কৃত ও ফারসি ভাষা শেখেন তিনি।  ইংরেজি সাহিত্যের প্রতি আগ্রহ জন্মানোর পর তিনি সনাতন ধর্ম ছেড়ে খ্রিস্টধর্ম গ্রহণ করেন এবং নামের সঙ্গে ‘মাইকেল’ যোগ করেন।  বিশপস কলেজে পড়ার সময় তিনি ইংরেজি ছাড়াও গ্রিক, লাতিন ও সংস্কৃত ভাষা শেখেন।  ধর্মান্তরিত হওয়ার কারণে বাবা অর্থ পাঠানো বন্ধ করে দিলে তিনি মাদ্রাজে গিয়ে শিক্ষকতা ও সাংবাদিকতা করেন।  রপ্ত করেন হিব্রু, ফারসি, জার্মান, ইতালিয়ান, তামিল ও তেলেগু ভাষা।  এই সময় তিনি ‘ক্যাপটিভ লেডি’ (১৮৪৯) কাব্য রচনা করেন।  বিয়ে করেন রেবেকা নামের এক ইংরেজ নারীকে।  ১৮৫৬ সালে বিয়ে করেন আরেক ইংরেজ নারী হেনরিয়েটাকে।  বাবার মৃত্যুর খবর পেয়ে কলকাতায় ফিরে আসেন এবং কিছুদিন পুলিশ কোর্টের কেরানি, পরে দোভাষীর কাজ করেন।  ১৮৫৮ সালে পাশ্চাত্য রীতিতে লেখেন প্রথম বাংলা মৌলিক নাটক ‘শর্মিষ্ঠা’।  এ ছাড়া দুটি প্রহসন : ‘একেই কি বলে সভ্যতা’ও ‘বুড়ো শালিকের ঘাড়ে রোঁ’।  এ ছাড়া নাটক ‘পদ্মাবতী’ ও ‘কৃষ্ণকুমারী’ এবং কাব্য ‘তিলোত্তমা সম্ভব’, ‘বীরাঙ্গনা’ ও ‘ব্রজাঙ্গনা’ রচনা করেন তিনি।  ১৮৬২ সালে মধুসূদন ব্যারিস্টারি পড়তে বিলেতে যান।  ১৮৬৩ সালে তিনি যান ফ্রান্সে।  তিনি সনেট রচনা এবং মাতৃভূমি ও মাতৃভাষাকে নতুনভাবে উপলব্ধি করেন।  ভার্সাইয়ে বসে লেখেন অমর সনেট ‘বঙ্গ ভাষা’ ও ‘কপোতাক্ষ নদ’।  সনেটগুলো ১৮৬৬ সালে ‘চতুর্দশপদী কবিতাবলী’ নামে প্রকাশিত হয়।  মধুসূদন দত্ত ১৮৭৩ সালের ২৯ জুন মৃত্যুবরণ করেন।