৪:৪৬ পিএম, ১৫ ডিসেম্বর ২০১৯, রোববার | | ১৭ রবিউস সানি ১৪৪১

Developer | ডেস্ক

ওয়ার্কার্স পার্টির কংগ্রেস বর্জনকারীদের জাতীয় সম্মেলন যশোরে

৩০ নভেম্বর ২০১৯, ০৭:৫০


বহুধাবিভক্ত কমিউনিস্ট পার্টিগুলোর ঐক্যের মাধ্যমে বাম গণতান্ত্রিক বিকল্প গড়ে তোলার দৃঢ় প্রত্যয় ঘোষণার মধ্য দিয়ে ওয়ার্কার্স পার্টির কংগ্রেস বর্জনারীদের সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে গতকাল যশোর টাউন হল ময়দানে।  দু’দিনব্যাপী এ সম্মেলন বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টি মতাদর্শ রক্ষা সমন্বয় কমিটির জাতীয় সম্মেলন উল্লেখ করা হয়েছে।  এ সম্মেলনের মাধ্যমে একটি নতুন সাচ্চা বিপ্লবী পার্টির আত্মপ্রকাশ ঘটতে যাচ্ছে বলে নেতারা আভাস দিয়েছেন। 
সম্মেলনের উদ্বোধন করেন ১৯৪৬ সালে যশোরের কেশবপুরের পাঁজিয়ায় অনুষ্ঠিত সর্বভারতীয় কৃষাণসভার সম্মেলনের একমাত্র জীবিত স্বেচ্ছাসেবক কমরেড নারায়ণ বসু। 
ওয়ার্কার্স পার্টির ১০ম কংগ্রেস বর্জনকারী পার্টির মতাদর্শ রক্ষা সমন্বয় কমিটির জাতীয় সম্মেলন উপলক্ষে দুই দফায় বৈঠক হয় যশোরে।  সম্মেলনে ওয়ার্কার্স পার্টির বিপ্লবী নেতা ইকবাল কবীর জাহিদ বলেছেন, বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির শীর্ষ নেতৃত্ব অর্থনৈতিক দুর্নীতি ও রাজনৈতিক দুর্বৃত্তায়নের সাথে মিশে গেছেন।  এ কারণে সময়ের ব্যবধানে দলটির জনভিত্তি দুর্বল হয়ে পড়ছে।  আমরা আমাদের পার্টির নীতি অনুযায়ী বিষয়টি নিয়ে আলোচনা করতে চেয়েছি।  দেশের বিদ্যমান কমিউনিস্ট অনৈক্যের বিপরীতে ঐক্য গড়তে উদ্যোগের কথা বলেছি।  কিন্তু পার্টির মধ্যে গণতান্ত্রিক পরিবেশ ছিলো না।  এ জন্য আমাদের কথার গুরুত্ব দেয়া হয়নি।  আমরা দেশের সব কমিউনিস্ট দলগুলোকে একটি ছাতার নিচে আনতে চাই।  সেই লক্ষ্য নিয়ে এই সম্মেলনের আয়োজন করা হয়েছে। 
বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি-সিপিবির কেন্দ্রীয় সভাপতি মুজাহিদুল ইসলাম সেলিম বলেন, ঢাকা থেকে শুনে আসছি যশোরের সম্মেলন হবে বিভক্তির।  কিন্তু এখানে এসে দেখি সম্পূর্ণ উল্টো।  তিনি বলেন, গত ১৫ বছরে দেশে গণতন্ত্রের কোনও বিকাশ হয়নি।  বরং আমাদের অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশে ধর্মীয় রাজনীতির উত্থান সেই অবস্থানকে আরও অন্ধকারে নিয়ে গেছে। 
বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক কমরেড সাইফুল হক বলেন, একসময় আওয়ামী লীগ মানুষের ভোট আর ভাতের অধিকার আদায়ে রাজপথে ছিল।  কিন্তু ২০১৪ আর গত ৩০ ডিসেম্বরের নির্বাচনে মানুষের ভোটের অধিকার কেড়ে নিয়ে একটা চূড়ান্ত ফ্যাসিবাদী দুঃশাসন আজ জাতির বুকের উপরে চেপে বসে আছে। 
বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির পলিটব্যুরোর সাবেক সদস্য নুরল হাসানের সভাপতিত্বে সমাবেশ টেলিকনফারেন্সের মাধ্যমে বক্তব্য রাখেন সাবেক সাধারণ সম্পাদক বিমল বিশ্বাস।  বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির পলিটব্যুরোর সাবেক সদস্য মনোজ সাহা, বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি সাইফুল হক, বাংলাদেশের ইউনাইটেড কমিউনিস্ট লীগের সাধারণ সম্পাদক মোশারফ হোসেন নান্নু, ঐক্য ন্যাপের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক হারুণ অর রশিদ, গণতান্ত্রিক বিপ্লবী পার্টির কেন্দ্রীয় সদস্য লিয়াকত আলী, যশোর জেলা ওর্য়ার্কার্স পার্টির সভাপতি নাজিম উদ্দিন। 
এর আগে যশোর জেলা পার্টি অফিস থেকে দেশের বিভিন্ন জেলা থেকে আসা ডেলিগেটসহ পার্টির সদস্যরা কাস্তে হাতুড়িখচিত লাল পতাকা মিছিল নিয়ে সম্মেলন স্থলে আসেন।