৮:১৬ পিএম, ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০২০, রোববার | | ২৮ জমাদিউস সানি ১৪৪১

Developer | ডেস্ক

খুতবা দেয়ার সময় কালেমা পড়তে পড়তে ইমামের ইন্তেকাল

০৪ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ০৬:৩১


জুমার নামাজের আগে খুতবা শুরু করেন ইমাম শায়খ আবুল আজম ত্বহা।  মিসরের ওররাক রাজ্যের গিজায় অবস্থিত মসজিদ আল হাবিবে ঘটনাটি ঘটে।  খুতবা দেয়ার সময় খতিব আবুল আজম ত্বহা কালেমা পড়তে পড়তেই মিম্বার থেকে নিচে পড়ে যান এবং ইন্তেকাল করেন।  (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন…)।  আল জাজিরা আরবি গণমাধ্যমের প্রতিবেদনে জানানো হয়, গত শুক্রবার শায়খ আবুল আজম ত্বহা প্রায় ৪০ বছর ধরে মিসরের বিভিন্ন অঞ্চলে ইসলামের দাঈ হিসেবে দাওয়াতি কাজ করে গেছেন।  তিনি সাধারণ মানুষের কাছে ব্যাপক জনপ্রিয় দাঈ হিসেবে পরিচিত ছিলেন।  তিনি এ মসজিদে দীর্ঘদিন ধরে খতিবের দায়িত্ব পালন করে আসছিলেন। 

তার ইন্তেকালের মুহূর্তের একটি অডিও ক্লিপ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়ে যায়।  অডিওতে তাকে কালেমা পড়তে শোনা যায়।  আর তারপরই উপস্থিত জনতার শোরগোল শুরু হয়ে যায়। 

মুসল্লিরা জানায়, ‘কালেমা পাঠ করার আগে শায়খ আবুল আজম ত্বহা খোতবার শুরুতেই পবিত্র কুরআনুল কারিমের সুরা নেসার ৩৬ নং আয়াত পাঠ করেন-
وَاعْبُدُواْ اللّهَ وَلاَ تُشْرِكُواْ بِهِ شَيْئًا وَبِالْوَالِدَيْنِ إِحْسَانًا وَبِذِي الْقُرْبَى وَالْيَتَامَى وَالْمَسَاكِينِ وَالْجَارِ ذِي الْقُرْبَى وَالْجَارِ الْجُنُبِ وَالصَّاحِبِ بِالجَنبِ وَابْنِ السَّبِيلِ وَمَا مَلَكَتْ أَيْمَانُكُمْ إِنَّ اللّهَ لاَ يُحِبُّ مَن كَانَ مُخْتَالاً فَخُورًا

অর্থ: আর উপাসনা কর আল্লাহর, তাঁর সাথে অপর কাউকে শরিক করো না।  পিতা-মাতার সাথে সৎ ও সদয় ব্যবহার কর এবং নিকটাত্নীয়, এতিম-মিসকীন, প্রতিবেশী, অসহায় মুসাফির এবং নিজের দাস-দাসীর প্রতিও।  নিশ্চয়ই আল্লাহ দাম্ভিক-অহংকারীকে পছন্দ করেন না। ’ (সুরা নেসা : আয়াত ৩৬)

মুসল্লিরা আরও জানান, খুতবা শুরু করে তিনি হামদ ও ছানার পরই কালিমা পড়া শুরু করেন এবং তার কণ্ঠ রুদ্ধ হয়ে আসার পাশাপাশি সজিদে উপস্থিত মুসল্লিদের সামনেই খুতবার মিম্বর থেকে নিচে পড়ে যান। 

শায়খ আবুল আজম ত্বহার পরিবারের তথ্য মতে, ওইদিন পর্যন্ত তিনি পরিপূর্ণ সুস্থ ছিলেন।  প্রতিদিনের মতো খুব ভোরে ঘুম থেকে জেগে তাহাজ্জুদের নামাজ আদায় করেন।  ফজর আদায়ের পর তিন পারা কুরআন শরিফ তেলাওয়াত করে পরিবারের সবার সঙ্গে সকালের নাশতা করেন এবং জুমার প্রস্তুতির জন্য গোসল করে বাসা থেকে মসজিদে আসেন।  এরপর তার মৃত্যু হয়। 

শায়খ আবুল আজম ত্বহার ইন্তেকালকে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ‘সৌভাগ্যের মৃত্যু’ হিসেবে পরিচিতি পায়।  এতে অনেকেই মন্তব্য করেছেন যে, এরচেয়ে সুন্দর বিদায় আর নেই।  জুমার দিনে, মসজিদের মিম্বরের ওপরে, একত্ববাদের কালিমা পড়তে পড়তেই বিদায় নিলেন শায়খ আবুল আজম ত্বহা।  শুক্রবার বাদ আসর তার জানাজা অনুষ্ঠিত হয়।  আল্লাহ তাআলা তাকে জান্নাতের সর্বোচ্চ মাকাম দান করুন।  আমিন।